হার্ট এটাক, ভুল ধারনা নিয়ে আমরা…. ১ম পর্ব

আপনি জানেন কি?
সারাবিশ্বে প্রতি বছর, সবচেয়ে বেশী মানুষের মৃত্যু হয় কোন অসুখে?
উত্তর হলো, হার্ট এবং রক্তনালির অসুখে…

আরো নির্দিষ্ট করে বললে,

“হার্ট এটাকে…!!!”

প্রাণঘাতী এই রোগ নিয়ে, প্রচলিত ভুল ধারনা গুলোর ব্যাপারে সচেতনতা বৃদ্ধিই আজকের লিখার উদ্দেশ্য।

প্রথম পর্বে থাকছে, কারা হার্ট এটাকের ঝুঁকিতে আছেন, এ নিয়ে প্রচলিত ভুল ধারনগুলোর ব্যাপারে তথ্য।

প্রথমে দেখে নেয়া যাক, হার্ট এটাকে আক্রান্ত হবার ঝুঁকি গুলো কি কি;

***চেষ্টা করলে নিয়ন্ত্রন করা যায় বা এড়ানো যায় এমন ঝুঁকি গুলো হলোঃ
হাই ব্লাডপ্রেশার থাকা, রক্তে অতিরিক্ত কোলেষ্টেরল, ধূমপানের অভ্যেস, স্থূলতা/মেদ, কম শারীরিক পরিশ্রমী জীবনযাত্রা, মদ্যপান, অপুষ্টি এবং মানসিক চাপ।

***চেষ্টা করেও নিয়ন্ত্রন করা যায় না বা এড়ানো যায় না এমন ঝুঁকি গুলো হলোঃ
বাবা মায়ের হার্টের অসুখ থাকা (সেক্ষেত্রে সন্তানদের হার্টের অসুখ এর সম্ভাবনা বেড়ে যাবে), বয়স বাড়া (বয়স্কদের আক্রান্ত হবার সম্ভাবনা বেশী), পুরুষ (মহিলাদের তুলনায় পুরুষদের ঝুঁকি বেশী)।

এ ছাড়াও অন্যান্য অসুখের উপস্থিতিতে (যেমনঃ ডায়াবেটিস বা কিডনীর সমস্যা) হার্টের অসুখের সম্ভাবনা বেড়ে যায়।

 

ভুল ধারনা-১। “আমার বয়স মাত্র ৩০ বছর, এই বয়সে হার্ট এটাক হয় নাকি? এসব বয়স্কদের সমস্যা…”

উপরের তালিকায় যে বিষয় গুলো আছে, সেসবের কোনোটা যদি অল্প বয়সেই থাকে আপনার, বয়স যাইই হোক, আপনি হার্ট এটাক এর ঝুঁকি মুক্ত নন।

সব ধরনের ওষুধের হোম ডেলিভারী পেতেঃ Order Now

ভুল ধারনা-২। “পুরুষদের অসুখ হার্ট এটাক, মহিলাদের হার্ট এটাক হয় না বললেই চলে…”

আপনি যা ভাবছেন, তা গত শতাব্দীর নব্বই দশকের আগের ভাবনা। তারপর থেকে হার্ট এটাকে মহিলাদের আক্রান্ত হবার সংখ্যাটি পুরুষদের চেয়ে খুব কম নয়। তবে, এখনো হার্ট এটাকে পুরুষদের আক্রান্ত হওয়া এবং মৃত্যুহারই বেশি।

ভুল ধারনা-৩। “আমি তৈলাক্ত খাবার খাই না, আমার হার্ট এটাক হবে না…”

খাদ্যাভ্যাস হার্ট এটাকের অনেকগুলো কারনের একটি মাত্র। সব তেলই শরীরের জন্য ক্ষতিকর নয়। আপনার খাদ্যাভ্যাস হয়তো ভালো, কিন্তু অন্যান্য কারন গুলোর প্রতি যদি আপনি উদাসীন হোন, ঝুঁকি তো আপনার থেকেই যাচ্ছে, তাই না?

ভুল ধারনা-৪। “আমার কোলেষ্টেরল নিয়ন্ত্রনে আছে, নিয়মিত ওষুধ খাচ্ছি, আমার হার্ট এটাক হবে না…”

এখানে ও একই ব্যাপার, রক্তে অতিরিক্ত কোলেষ্টেরলের মাত্রা হয়তো যত্ন করে নিয়ন্ত্রন করছেন আপনি। কিন্তু অন্যান্য কারন গুলো? যত্নসহকারে সে সব এড়াতে না পারলে হার্ট এটাকের ঝুঁকিমুক্ত নন আপনিও। প্রশ্ন ইতিমধ্যে এসে গেছে আপনার মনে, তাহলে আর পয়সা খরচ করে কোলেষ্টেরলের ওষুধ খেয়ে লাভ কি? জনাব, কোলেষ্টেরলের ওষুধ শুধু কোলেষ্টেরল কমাতেই দেয়নি ডাক্তার, ওই ওষুধ রক্তনালী ব্লক হবার প্রক্রিয়াকে থামিয়ে বা ধীর করে দেয়। তাই ওই ওষুধ বাদ দেয়া যাবে না।

ভুল ধারনা-৫। “আমার ব্লাড প্রেশারের সমস্যা নেই, ব্লাড প্রেশার বেশী থাকলে তবেই না হার্ট এটাক হবে, নাকি?”

হাই ব্লাড প্রেশার বা হাইপারটেনশন একটা মাত্র ঝুঁকি, হার্ট এটাক হবারক্ষেত্রে, আপনার হয়তো হাইপারটেনশন নেই। অন্যান্য কারন গুলো যদি আপনার থাকে, হাইপারটেনসন না থাকলে ও হার্ট এটাক হতে পারে আপনার।

ভুল না জেনে সঠিক তথ্য জানুন, নিজে সুস্থ্য থাকুন।

 

লিখেছেনঃ ডাঃ মোহাম্মদ শাকিলুজ্জামান

জেনারেল ফিজিশিয়ান

লেখক পরিচিতি

আজ এ পর্যন্তই, আগামীপর্বে থাকছে হার্ট এটাকের ঝুঁকিতে কারা আছেন, এ নিয়ে ভুল ধারনা গুলোর দ্বিতীয় অংশ।

আমাদের ডাক্তার এখানে লিখছেন প্রতিদিনই, নিয়মিত স্বাস্থ্য বিষয়ক আপডেট পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক বা ফলো করুন।

  • 99
    Shares
  • 99
    Shares

Offer, Discount, Cashback & Many More

X