জ্বর এবং এন্টিবায়োটিক, আমাদের ধারনা…

জ্বর এবং এন্টিবায়োটিক, আমাদের ধারনা…

জ্বর হলে এন্টিবায়োটিক খেতেই হয়? চলুন খুজে নেয়া যাক, এ প্রশ্নের উত্তর। জ্বর কোনো অসুখ নয়, অসুখের উপসর্গ মাত্র। বেশীর ভাগ ক্ষেত্রে জ্বর আসে ইনফেকশনজনিত অসুখ গুলোতে। ইনফেকশন হতে পারে বিভিন্ন ধরনের, যেমনঃ ব্যাকটেরিয়াল, ভাইরাস, ফাংগাল ইত্যাদি। জ্বর হতে পারে ইনফেকশন ছাড়া অন্য অনেক কারনেও।

জ্বর হলে এন্টিবায়োটিক?

ইনফেকশন নিয়ন্ত্রন করতে আমরা বিভিন্ন ধরনের ওষুধ ব্যাবহার করে থাকি, যেমনঃ

*ব্যাকটেরিয়াজনিত ইনফেকশনের ওষুধ এন্টিবায়োটিক।
*ভাইরাসজনিত ইনফেকশনের ওষুধ এন্টিভাইরাল।
*ফাংগাসজনিত ইনফেকশনের ওষুধ এন্টিফাংগাল।

দুটো ব্যাপার লক্ষ্য করুন,

১। যে রোগীর জ্বর এসেছে ইনফেকশন ছাড়া অন্য কোনো কারনে, ইনফেকশন এর জন্য ব্যাবহারিত ওষুধ দিলে তার জ্বর কমা সম্ভব? আপনার কি মনেহয়?

২। যে রোগীর ইনফেকশন হয়েছে ভাইরাস, ফাংগাস, প্রটোজোয়া বা অন্য কোনো জীবানু দিয়ে, এমনক্ষেত্রে ব্যাকটেরিয়াজনিত ইনফেকশনের ওষুধ দিলে ইনফেকশন বা জ্বর কমবে রোগীর? আপনার জ্ঞান আপনাকে কি বলছে?

সব ধরনের ওষুধের হোম ডেলিভারী পেতেঃ Order Now

এন্টিবায়োটিক হলো ব্যাকটেরিজনিত ইনফেকশনে ব্যাবহার করার ওষুধ। ব্যাকটেরিয়া ছাড়া অন্য কোনো জীবানু যেমনঃ ভাইরাস, ফাংগাস, প্রটোজোয়া ইত্যাদি দিয়ে ইনফেকশন হয়ে জ্বর এলে এন্টিবায়োটিকে কোনো লাভ নেই। [১] বরং কিছু দীর্ঘ মেয়াদি ক্ষতির কারন হবে ওই এন্টিবায়োটিক।

সাধারনত সর্দি-জ্বর হয় ভাইরাসজনিত ইনফেকশন থেকে, যা ৭ থেকে ১০ দিনে আপনাতেই সেরে যায়। তাই এ ধরনের জ্বরে এন্টিবায়োটিক খেলে লাভ তো নেইই (কারন, এটা ব্যাকটেরিয়াজনিত ইনফেকশন এর কারনে হয়নি), বরং ক্ষতির সম্ভাবনা আছে।

এ ধরনের জ্বরের ক্ষেত্রে ৩ থেকে ৫ দিন পর্যন্ত জ্বরের ওষুধ প্যারাসিটামল ব্যাবহার করুন, এন্টিবায়োটিক নয়। ৩ থেকে ৫ দিনে জ্বর ভালো না হয়ে, সাথে অন্যান্য উপসর্গ দেখা দিলে, নিকটস্থ ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

উপরের লিখার সারসংক্ষেপ হলোঃ
১. এন্টিবায়োটিক ছাড়াও জ্বর ভালো হয়, তাই জ্বর হলে এন্টিবায়োটিক খেতেই হবে, এমন নয়।
২. ব্যাকটেরিয়াজনিত ইনফেকশনের কারনে জ্বর এলে কেবল তখনই এন্টিবায়োটিক প্রয়োজন, সব জ্বরের ক্ষেত্রে নয়।
৩. জ্বরের ওষুধ প্যারাসিটামল, এন্টিবায়োটিক জ্বরের ওষুধ নয়।

ভুল নয়, সঠিক তথ্য জানুন।
নিজে সুস্থ্য থাকুন।

লিখেছেনঃ

ডাঃ মোহাম্মদ শাকিলুজ্জামান।

জেনারেল ফিজিশিয়ান

লেখক পরিচিতি

[১] তথ্য সূত্রঃ World Health Organization

আমাদের ডাক্তার লিখছেন এখানে প্রতিদিনই, স্বাস্থ্যবিষয়ক আপডেট নিয়মিত পেতে আমাদের ফেসবুক পেজে লাইক বা ফলো করুন।

  • 42
    Shares
  • 42
    Shares

Offer, Discount, Cashback & Many More

X